প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশনের রোগিদের নির্মম বাস্তবতা

আমরা অনেক রক্তদাতাই বর্তমানে প্লাটিলেটফেরেসিস এর মাধ্যমে প্লাটিলেট দান করতে খুবই আগ্রহী। এমনকি অনেকেই বলেন শুধু প্লাটিলেট লাগলে দিবেন, হোল ব্লাড দিবেন না।

কিন্তু রোগির আত্মীয়ের জন্য হোল ব্লাড ট্রান্সফিউশনের চেয়েও বড় একটি বোঝা এই প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশন করা। যে রোগির নিয়মিত প্লাটিলেট এর প্রয়োজন হয়, সে রোগির আত্মীয় দিনে দিনে নিঃস্ব হয়ে যায়। আর্থিক অবস্থা ভাল না হলে প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশনের খরচ মেটানো খুবই কঠিন।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে খরচ হোল ব্লাড ট্রান্সফিউশনের মতোই কম। তবে ম্যানুয়ালি করতে গেলে ৪জন ডোনার লাগে বলে অনেক হয়রানি হতে হয় ডোনার খুজতে। অন্যদিকে এফেরেসিস করলে একজন ডোনার থেকেই ১ ইউনিট প্লাটিলেট নেয়া যায়।
প্রতিবার এফেরেসিস করে প্লাটিলেট দিতে সরকারিভাবেই খরচ হয় ১২,০০০/- থেকে শুরু করে ১৫,০০০/- পর্যন্ত। আর বেসরকারিতে তো ২০,০০০/- থেকে শুরু করে ৪০,০০০/- পর্যন্তও খরচ হয় মাত্র ১ ইউনিট প্লাটিলেট এফেরেসিস করতে। এত টাকা খরচের কারণ হলো, এ পদ্ধতিতে ব্লাড নেয়ার যে ডিভাইস সেট ব্যাবহার করা হয়, তা কিনতেই ১১,৫০০/- খরচ হয়। এজন্য কোন হাসপাতালেই এই খরচ কমানো সম্ভব হয় না।

আজ এক রোগির আত্মীয়কে ফোন দিলাম খোজ খবর জানার জন্য। এপ্লাস্টিক এনমিয়ায় আক্রান্ত সেই রোগির নিয়মিত A-ve গ্রুপের হোল ব্লাড ও প্লাটিলেট প্রয়োজন হচ্ছে। এর আগে আমি নিজেও একবার প্লাটিলেট দিয়েছিলাম সেই রোগিকে। এছাড়া এই একই রোগিকে Habib Rahman Babu ভাই ও Ra Bbi ভাই সহ আরো অনেকে প্লাটিলেট দিয়েছিলেন।

রোগির স্ত্রী জানালেন, প্লাটিলেট দিতে দিতে এখন তারা আর টাকা ম্যানেজ করতে পারছে না। ঢাকা মেডিকেল থেকে রিলিজ নিয়ে আপাতত বাসায় রাখা হয়েছে। কিন্তু এখনো তার হোল ব্লাড ও প্লাটিলেট দুটোই দরকার। টাকার অভাবে চিকিৎসা প্রায় থেমেই যাচ্ছে।

এই হলো প্লাটিলেট রিকুইজিশন এর রোগিদের জন্য এক নির্মম বাস্তবতা। প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশনের রোগিদের জন্য সরকারের আরেকটু উদ্যোগ প্রয়োজন। এফেরেসিস ডিভাইস সেটের দাম কমানোর জন্য একটু চেস্টা করলে বহু রোগি এ রকম অর্থকষ্ট থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পাবে।

পরিশেষে একটি দোয়াই করি, আল্লাহ যেন আর কোন গরীব রোগিকে প্লাটিলেট স্বল্পতায় না ভুগায়।

ইমন চৌধুরী
ফিজিওথেরাপিস্ট – ভিশন ফিজিওথেরাপি সেন্টার।
সভাপতি – অর্পণ ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ।

সম্পাদক ও প্রকাশক – মেডিনিউজবিডি২৪.কম।

প্লাটিলেট ট্রান্সফিউশনের রোগিদের নির্মম বাস্তবতা

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *